শুরু হচ্ছে ‘দ্য বয়েজ- সিজন টু’

শুরু হচ্ছে ‘দ্য বয়েজ- সিজন টু’

বৈঠকখানা ডেস্কঃ প্রথম সিজনেই বিরাট ফ্যানবেজ তৈরি করে ফেলেছিল দ্য বয়েজ। সিরিজটি ভক্তদের কাছে তুমুল জনপ্রিয়। প্রথম সিজন শেষ হওয়ার পর থেকেই সবাই অধীর আগ্রহে ছিল দ্বিতীয় সিজনের জন্য। শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয় সিজনের ঘোষণা।  

দ্য বয়েজ এমন একটি ওয়েব টেলিভিশন সিরিজ যেটি বানানো হয়েছিল একই নামের কমিক থেকে। লেখক ছিলেন গার্থ এনিস এবং ড্যারিক রবার্টসন। ২০১৯ সালের ২৬শে জুলাই সিরিজটির প্রিমিয়ার হয়। প্রথম সিজনে সব এপিসোড একদিনেই রিলিজ করে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু দ্বিতীয় সিজনে তা করা হচ্ছে না। ৪ সেপ্টেম্বর রিলিজ পাচ্ছে প্রথম তিনটি এপিসোড। এরপর থেকে সাপ্তাহিকভাবে বাকিগুলো রিলিজ করা হবে।

দ্য বয়েজ সিরিজটি অনেকটা সুপারহিরো টাইপের হলেও আমাদের পরিচিত সুপারহিরোদের কাহিনী থেকে অনেকটাই আলাদা। এই সিরিজের কাহিনী এমন এক ইউনিভার্সে, যেখানে বেশ কিছু সুপার পাওয়ার সম্পন্ন ব্যক্তি রয়েছে। যাদেরকে সাধারণ মানুষেরা হিরো হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এসব হিরোরা “Vought International” নামের এক শক্তিশালী কোম্পানির অধীনে কাজ করে। এই কোম্পানি এসব হিরোদের নিজেদের কাজে এবং প্রচারে ব্যবহার করে। কিন্তু তাদের এই নায়কোচিত আচরণের আড়ালে লুকিয়ে আছে তাদের অন্য সত্ত্বা। যা তারা বাইরের দুনিয়া থেকে লুকিয়ে রাখতে চায়।

সিরিজে দুটি গ্রুপের উপরে ফোকাস করা হয়েছে। ভওট ইন্টারন্যাশনালের মূল সুপারহিরো টিম “দ্য সেভেন”। অন্য গ্রুপের আলাদা কোনও নাম সেভাবে প্রচলিত না থাকলেও তারা “দ্য বয়েজ” নামে পরিচিত। তাদের লক্ষ্য এসব তথাকথিত সুপারহিরোদের নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখা। বয়েজদের নেতা হচ্ছে বিলি বুচার। সমস্ত সুপার পাওয়ারদের প্রতি সে তীব্র ঘৃণা পোষণ করে। দ্য সেভেনের নেতা প্রবল পরাক্রমশালী এবং শক্তিধর হোমল্যান্ডার। এই দুই দলের অন্তর্দ্বন্দ্ব, কোলাহল, লড়াই নিয়েই সিরিজের কাহিনী এগিয়ে।

 এখানে বাকি সব সুপারহিরোদের অন্যান্য ডিসি মারভেল মুভি সিরিজের মতো দেখানো হয়নি। তাদেরও বিভিন্ন ভুল-ত্রুটি তুলে ধরা হয়েছে। ভালমন্দ দিকগুলো তুলে আনা হয়েছে দর্শকদের কাছে। ভিন্নধর্মী এই সিরিজটি তাই নজর কেড়েছে আলাদাভাবে। তাদের নিয়ে ফেসবুকে আলাদা ফ্যানগ্রুপ, পেজও তৈরি করা হয়েছে। সাধারণ সুপারহিরোদের নিয়ে এই চিন্তাভাবনাই বদলে দিতে পারে দ্য বয়েজ সিরিজ।

প্রথম সিজন যেখানে শেষ হয়েছিল সেখান থেকেই শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় সিজন। ফ্যানরা তাই অধীর আগ্রহে আছে দ্বিতীয় সিজনের জন্য।

administrator

Related Articles