গাছেরও পুরুষ থেকে নারী হওয়ার সাধ হয়েছিল

গাছেরও পুরুষ থেকে নারী হওয়ার সাধ হয়েছিল

বৈঠকখানা ডেস্কঃ বহু কাল ধরেই মানুষ তার জন্মগত লিঙ্গ পরিচয়ে সন্তুষ্ট নয়। সে যে লিঙ্গ পরিচয়ে পৃথিবীতে এসেছে সেই পরিচয় মুছে ফেলে বিপরীত হতে চায়। দুনিয়াজুড়ে মানুষের এমন ইচ্ছে দিন দিন বেড়েই চলেছে। তাই দেশে, বিদেশে রূপান্তরকামীরাসংখ্যায় বাড়ছে। শুধু মানুষ নয়, গাছও এখন শুরু করেছে লিঙ্গ পরিবর্তন করা!

প্রথম বার শুনে অনেকেই ধাক্কা খেয়েছিলেন। কারণ এমন কথায় ধাক্কা লাগারই কথা। একে গাছ তায় আবার অতি প্রাচীন, তার আবার লিঙ্গ পরিবর্তন! এ কি হতে পারে?  কিভাবে সম্ভব? প্রশ্ন গুলিই এত আশ্চর্যময় যে সেই ধাক্কা সামলে তবে তার উত্তর নিয়ে ভাবতে হয়। উদ্ভিদ বিজ্ঞানীদেরক্ষেত্রেও এমনটাই ঘটেছে।

সেন্ট্রাল স্কটল্যান্ডের একটি ছোট জায়গা পার্থশায়ার। সেখানেই একটি গাছ রয়েছে।ফোর্টিংঅল ইউ প্রজাতির গাছ। কথিত আছে ফোর্টিংঅল ইউ সেই গাছটি পাঁচ হাজার বছরেরও পুরনো। বয়সের কারণে গাছটি গত কয়েক শতক ধরে উদ্ভিদ বিজ্ঞানীদের কাছে অতি পরিচিত। বিজনানীরা গাছটিকে পুরুষ গাছ হিসেবেইজানে। এই পর্যন্ত ঠিকঠাকই ছিল।

কিন্তু অবাক করার মতো ঘটনা ঘটল যখন জানা বোঝা গেলসেই গাছটি আর পুরুষ নেই!নারী গাছ হয়ে গিয়েছে! এই খবরটি প্রথম জানান,এডিনবোরোর, রয়্যাল বোটানিক গার্ডেনের প্রধান ম্যাক্স কোলেম্যান।

পুরুষ গাছটি কিভাবে একা-একাই স্ত্রী গাছে পরিণত হলো?  এর উত্তর নেই উদ্ভিদ বিজ্ঞানীদের। তাঁরা নিজেরাই এই ঘটনায় বিস্মিত। কেউ কেউ বলার চেষ্টা করছেন, হতে পারে এই গাছটি ৫ হাজার বছর পরেই হয়ত ফল দেয়।

ফোর্টিংঅল ইউ প্রজাতির গাছ দুই প্রকৃতির; পুরুষ ও স্ত্রী।জননের সময় ফোর্টিংঅল ইউপুরুষ গাছের ছোট ছোট গুটির ভিতর থেকে পরাগরেণু ওড়ে। অন্যদিকে স্ত্রী গাছে দেখা যায় টকটকে লাল বেরি ফল।গাছটি যে পুরুষ প্রকৃতির, তার প্রমাণ এই পরাগ উৎপাদন। কিন্তু ওই ফোর্টিংঅল ইউ গাছের একটি অংশে ঠিক উলটো ছবি দেখা গেল। বুড়ো পুরুষ গাছটির উপরের দিকের একটি অংশে রেড বেরি ফলেছে। তা দেখেই অবাকহয়েছেন বিজ্ঞানীরা। এটা খুবই বিরল প্রাকৃতিক ঘটনা। গবেষণা করে দেখা গিয়েছে তার কারন লিঙ্গ পরিবর্তন।

administrator

Related Articles